ভারতের কেরালায় ৫০০ রুপি দিয়ে একটি লটারি কিনে প্রথম পুরস্কার ২৫ কোটি জিতে নিয়েছেন এক অ’টোরিকশাচালক। সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি ও দ্য হি’ন্দুর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রোববার ‘ওনাম বাম্পার লটারি’ জেতা এই অটোচালকের নাম অনুপ। দোটা’না নিয়ে হ’ঠাৎই ড্রয়ের ঠিক আগের দিন শনিবার ‘ভগবতী লটারি এজেন্সির’ একটি টিকিট কিনেন তিনি।

 

কেরালার শ্রীভরাহ’মের বাসি’ন্দা অনুপ সেফ (বাবুর্চি) হিসেবে কাজ করার জন্য মালয়েশিয়া পাড়ি দেয়ার প্রস্তু’তি নিচ্ছিলেন। অভিবাসনের খরচ সামা’ল দিতে ব্যাংক থেকে তিন লাখ রুপি ঋণ পেতে আবেদন করেছিলেন তিনি। শনিবারই ব্যাংক থেকে অনুমোদনের সুসংবাদ পান তিনি।

 

ছোট্ট সেই খুশি আ’কাশ ছুঁ’য়েছে এর পরের দিন। ২৫ কোটি রুপির ল’টারি জেতার খবর পেলেন সেদিন। লটারি কর্তৃপ’ক্ষের খরচ, কর এসব মি’টিয়ে অনুপের হাতে আসবে ১৫ কোটি রুপি, এমনটি জানিয়েছেন এক কর্মকর্তা। লটারি জেতার পর অনু’প বলেন, ‘ঋণ অনুমোদনের বিষয়ে শনিবার ব্যাংক থেকে ফোন এসেছিল। আমি বলে দিয়েছি, আমার ঋ’ণের আর প্রয়ো’জন হবে না। আমি মালয়েশিয়াও যাচ্ছি না।’

 

লটারি কে’নার প্রতি আগ্রহী অনুপ গত ২২ বছর অনেক টিকিট কি’নছেন। এসব লটারিতে শ খানিক রুপি থেকে সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার রুপি জিতেছিলেন তিনি। এ বিষয়ে উ’চ্ছ্বসিত অনুপ বলেন, ‘এবার লটারি জেতার কল্পনাও করি নাই। তাই টি’ভিতে ড্র’য়ের ফলও দেখিনি। কিন্তু আমার মোবাইল ফোনে এসএমএস আসে। দেখলাম, আমি ২৫ কোটি রুপির প্রথম পু’রস্কার জিতে গেছি।’

 

অনুপ আরও বলেন, ‘আমি তখনও বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। আমার স্ত্রীকে এসএমএসটি দেখালাম। তিনি নি’শ্চিত করেন যে আমার কেনা ল’টারির নম্বরটিই প্রথম স্থান জয়ী।’ এরপর তিনি তার পরিচিত এক নারী যিনি এই ল’টারি বিক্রির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তাকে টিকি’টের ছবি তুলে পাঠান। ওই নারী তাকে নি’শ্চিত করেন যে তার টিকিটই এবার জিতে নিয়েছে প্রথম পুরস্কার।

 

কীভাবে এত বিশাল অ’ঙ্কের অর্থ তিনি ব্য’য় করবেন- এমন প্রশ্নের উত্তরে অনুপ বলেন, ‘আমার প্রথম ইচ্ছা, পরিবারের জন্যে একটি বাড়ি কিনব এবং সংসার চালাতে যেসব ঋ’ণ আমাকে নিতে হয়েছিল সেগুলো পরিশো’ধ করে দেব। ‘আমি আত্মীয়-স্বজনদের সহায়তা করব। কিছু দাত’ব্য ও জনসেবামূলক কাজ করব। এ ছাড়া কেরালায় হোটেল ব্যবসায় কিছু বিনিয়ো’গ করব,’ যোগ করেন তিনি।

 

পুরস্কা’রের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন অনুপের স্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আমার স্বামী এর আগেও অনেক লটারির টি’কিট কিনেছেন। লটারি জেতার পর অনেক শুভেচ্ছা পেয়েছি।’

 

কাকতালীয়ভাবে এর আগের বছর ওনাম বা’মপার লটারির প্রথম পুরস্কার ১২ কোটি রুপি জেতেন আরেক অটোরিকশাচালক। কোচির বাসিন্দা ওই অটোচালকের নাম জয়পলান। এ বছর দ্বিতীয় স্থান জয়ী পেয়েছেন ৫ কোটি রুপি ও অন্য ১০ জন পেয়েছেন এক কোটি করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.