কাতার পৃথিবীর শান্তিপূর্ণ দেশের মধ্যে অন্যতম একটি দেশ। নাগরিক ও অধিবাসীদের নিরাপ’ত্তার বিষয়ে বরাবরের মতো খুবই সচে’তন এই দেশ।

 

দেশটিতে বসবাস যতটা নি’রাপদ, অ’পরা’ধীদের জন্য দেশটির আ’ইন ততটা ক’ঠোর। চলতি বছরের শেষ নাগাদ কাতারে শুরু হবে ২০২২ ফিফা বিশ্বকাপ টুর্ণামেন্ট।

 

বিশ্বকাপ উপভোগের উদ্দেশ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে লাখ লাখ দর্শক ছুটে আসবেন মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে ছোট এই দেশটিতে। বিশ্বকাপকে সামনে রেখে কাতার কর্তৃপ’ক্ষ তাই চালু করেছে বেশিকিছু নতুন আই’ন ও নিয়ম।

 

তবে বিশ্বকাপ চলাকালে দর্শকদের ছোটখা’টো অপরা’ধের ক্ষে’ত্রে আয়োজক কর্তপক্ষ কিছুটা নমনীয় পন্থা অবলম্বন করবেন, এমন ই’ঙ্গিত দিলেন আয়োজকরা।

 

রয়টার্সের সাথে কথা বলার সময় এক কর্মকর্তা জানান, বহুল প্রতী’ক্ষিত কাতার বিশ্বকাপের দর্শকরা ছোটখাটো অ’পরা’ধের জন্য জে’লের মুখোমু’খি যেন হতে না হয়, সেজন্য পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

 

যদিও এই বিষয়টি প্রয়োগের পরিকল্পনা এখনও চূ’ড়ান্ত করেনি কাতার সরকার। তবে সরকারি বিভিন্ন কর্মকর্তাদের বিবৃ’তি ই’ঙ্গিত করে কাতার বিশেষ কিছু অ’পরা’ধের ক্ষে’ত্রে তুলনামূ’লকভাবে আরও নমনীয় হতে যাচ্ছে। কাতারের আই’ন অনুযায়ী যেকোন পাবলিক প্লেসে ম’দ পা’ন করলে ৩ হাজার রিয়াল জরি’মানা অথবা ৬ মাস পর্যন্ত জে’ল হতে পারে।

 

এমনকি জনসাধারণকে খারা’পভা’বে আকৃ’ষ্ট করে অথবা ইসলামিক আই’নের সাথে সাং’ঘর্ষি’ক এমন খো’লামে’লা পোশাক পরিধান করাও ‘নি’ষি’দ্ধ। তবে এসব আ’ইনের ক্ষে’ত্রে সরকার বরাবরের মতো ক’ঠোর হলেও চলতি বছরের শেষের দিকে বিশ্বকাপের সময় তা নাও হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *