কাতার বিশ্বকাপের ক্ষণগ’ণনা শুরু হলেও শেষ মুহূর্তে কর্মরত শ্রমিকদের বেতন পরিশো’ধ না করায় বি’পাকে পড়তে হচ্ছে আয়োজকদের। কর্মীদের বেতন পরি’শোধ না করায়, কাতারের ব্যস্ততম শহরগুলোতে প্র’তিবাদ সমাবেশ করেছেন তারা। সংক’ট সমাধান না করে, ৬০ জনকে গ্রে’ফতার করেছে কাতার পুলিশ।

বিশ্বকাপের আগে শ্রমিকদের মানবাধিকার নিশ্চিতের দা’বি জানিয়েছেন শ্রমিক মানবা’ধিকার বিষয়ক সংস্থা ইকুইডেমের ডিরেক্টর মুস্তাফা কা’দরি। কাতারজুড়ে চলছে বিশ্বকাপ আয়োজনের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। চলতি বছর কাতারে আয়োজিত এই মহায’জ্ঞে, ফুটবল বিশ্বকাপের মূল উদ্দেশ্যে হিসেবে প্রাধান্য পাবে, বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আগত দর্শনার্থীদের এক’ত্রিত করে সফলভাবে আয়োজন শেষ করা।

চোখ ধাঁ’ধানো সব আয়োজনে বিশ্বকে চমকে দিতে প্রস্ততি চলছে কাতারের শহরগুলোতে। তবে, বিশ্বজুড়ে ঐক্য সৃষ্টির এই মহাযজ্ঞে বরাবরের মতো আবারো অ’ভিযোগ’ উঠেছে মানবাধিকার লঙ্ঘনের। বিশ্বকাপ মহারণ সামনে রেখে কাতারজুড়ে আটটি নান্দনিক স্টেডিয়াম, খেলোয়াড় ও ম্যাচ সংশ্লিষ্টদের থাকার জায়গা ও বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আগত দর্শনার্থীদের জন্য তৈরি করা হয়েছে হোটেল-মো’টেলসহ নানা ধরনের স্থাপনা।

নান্দনিক এসব স্থাপনা তৈরিতে গত কয়েক বছর ধরে নিরলস শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন শ্রমিকরা। তবে, অ’ভিযো’গ উঠেছে মধ্যপ্রা’চ্যের দেশটির বিশ্বকাপের বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণে কর্মরত শ্রমি’কদের বেতন ভাতা প’রিশো’ধ করছে না কাতার। শ্রমিকদের প্রাপ্য বেতন পরিশোধ না করায় কাতারের বিভিন্ন রাস্তায় প্র’তিবাদ’ সমাবেশ করেছেন তারা। কাতারের বিভিন্ন পথে প্র’তিবা’দে অংশগ্রহণকারী ৬০ জন বি’দেশি শ্রমিককে গ্রে’প্তার করেছে কাতারি পুলিশ।

গত কয়েক মাস ধরে আ’টকে থাকা বেতন-ভাতা আদায়ের প্রতিবাদে বি’ক্ষ’ভে অংশ নেয়া কর্মীদের গ্রে’প্তার করে তাদের তী’ব্র গরমে আ’টক করে রাখা হয়। যেখানে ৩০০ এর ও বেশি বাংলাদেশ, নেপাল, ইজিপ্ট, ইন্ডিয়া ও ফিলিপিনের কর্মীদেরও দেখা গিয়েছে। কাতারের শ্রম আইন ও মানবাধিকার ল’ঙ্ঘনের এ ধরনের কাজের বি’রু’দ্ধে অবস্থান নিতে কর্মীরা বিক্ষো’ভ করেছেন।

তাদের দা’বি, কর্মীদের বেতন-ভাতা, চিকিতসা সেবা ও শ্রমিকদের প্রা’প্য সম্মান নিশ্চিতকরণে এ ধরনের প্র’তিবাদ করে যাচ্ছেন কাতারে কর্মরত প্রবাসী কর্মীরা। শ্রমিক মানবাধিকার সংস্থা ইকুইডেমের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর মুস্তাফা কাদরী বলেন, ‘গত কয়েক মাস ধরে কাতারে কর্মরতদের বেতন পরিশো’ধ করছে না কর্তৃপক্ষ। কর্মীরা নিজেদের অধিকার আদায়ের দা’বিতে পথে নেমেছে।

বিশ্বের নানা প্রান্তের মানুষকে এক’ত্র করতে চলতি বছরেই কাতারে বসতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ মহারণ। তবে, ঐক্যের এই আসর বসলেও কাতারজুড়ে কর্মীরা মানবাধীকার ল’ঙ্ঘ’নের শি’কার হচ্ছেন। বিশ্বকাপের এই আসরের আগে কর্মীদের মানবাধিকারের বিষয়ে সোচ্চার অবস্থান নেয়া উচিত কাতারি কর্তৃপক্ষকে। এদিকে প্রতি’বাদ সমাবেশের পর, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কর্মীদের সব বেতন পরিশো’ধের আশ্বাস দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.