কক্সবাজারের মহেশখালীতে ধ’রা পড়া ‘কালো লেজ জৌ’রালি’ পাখিটি মা’রা গেছে। গতকাল সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) কক্সবাজারের মহেশখালী স্থানীয় যুবক নোমান পাখিটি ধরে ফেলেন।

 

পরে এর পিঠের ডি’ভাইস নিয়ে দেখা দেয় কৌতুহল। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষক মূ’লত গবেষণার জন্য পাখিটির গায়ে ডি’ভাইস বসিয়েছিলেন।

 

মঙ্গলবার পাখিটির মৃ’ত্যুর খবর নিশ্চিত করেন ধলঘাটা ইউনিয়নের বিট কর্মকর্তা নুরুল আলম মিয়া। তিনি জানান, সোমবার রাতেই পাখিটির মৃ’ত্যু হয়েছে।

 

উল্লেখ্য, গতকাল সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টার দিকে মহেশখালী উপজেলার ধলঘাটা ইউনিয়ন থেকে পাখিটি উ’দ্ধার করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ধলঘাটা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুল হাসান।

 

তিনি জানান, বিকেলে পাখিটি ক্লা’ন্ত হয়ে নিচে নেমে এসে বসে পড়ে। স্থানীয় নোমান পাখিটি দেখতে পায়। পড়ে পাখির শরীরে সংযু’ক্ত ডিভাইস দেখে সেটি ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে আসে। বিষয়টি আমি বন বিভাগে জানাই।

 

পাখিটি উ’দ্ধার করে বন বিভাগে হস্তান্তর করা হয়। জানা যায়, গ্রামের এক কিশোর ধলঘাটার সু’ইস গেইটের পাশে পাখিটিকে বসে থাকতে দেখে ধরে ফেলে।

 

পরে পাখির গায়ে ডিজিটাল ডিভাইস লাগানো দেখে ওই কিশোর ভ’য়ে পাখিটি ইউনিয়ন পরিষদে হস্তান্তর করে। পরে পাখিটি বনবিভাগের জি’ম্মায় দেয়া হয়েছিল। এরপর পাখিটি মা’রা যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *