বিশ্বকাপ চলাকালীন প্রথম দুই সপ্তাহে কাতারে উপ’স্থিত হওয়া লাখো ভ’ক্ত-সম’র্থকদের কারনে যানজটের বিষয়ে সত’র্কবার্তা দিয়েছে আয়োজক কমিটি। এ সময় কাতারের রাজধানী দোহায় বেশ কিছু গুরু’ত্বপূর্ণ সড়কে ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচল বন্ধ থাকবে।

 

যাটজট এ’ড়ানোর বিষয়ে আয়োজিত এক এক সংবাদ সম্মেলনে আয়োজক ও সরকারী কর্মকর্তাদের প’ক্ষ থেকে বলা হয়েছে স্টেডিয়ামে আশেপাশে যাদের বাসা তাদেরকে বিশেষ অনুম’তি দেয়া হবে। আগামী ২০ নভেম্বর থেকে দোহায় শুরু হতে যাচ্ছে এবারের বিশ্বকাপ।

 

বিশ্ব ফুটবলের সর্বো’চ্চ এই আসর আয়োজনে আয়তনের দিক থেকে এখন পর্য’ন্ত দোহাই সবচেয়ে ছোট শহর যেখানে ২.৯ মিলিয়ন মানুষ বসবাস করে। বিশ্বকা’পকে সামনে রেখে ড্রাইভার বিহিন মেট্রো রেল নেটওয়ার্ক প্রস্তুতিতে কাতার বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার ব্য’য় করেছে।

 

আ’টটি স্টেডিয়ামে পাঁচটিতেই এই মে’ট্রো রেলের সাহায্যে যাতায়াত করা যাবে। এছাড়াও রাস্তায় প্রতিদিন অতিরিক্ত ৩২০০ বাস ও ৩০০০ ট্যাক্সি থাকবে। ২৯ দিনের এই আয়োজনে বি’শ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এক মিলিয়নের বেশী সম’র্থকের দোহা ভ্রমনের আশা করা হচ্ছে।

 

প্রথম দুই সপ্তাহে দিনে গ্রু’প পর্বের চারটি করে ম্যাচ থাকবে। আর সে কারনেই আয়োজকদের প্রত্যাশা এই সময়ে দোহার সড়কে অনেক বেশী সমর্থ’কের উপস্থিতি ঘটবে। প্রতিদিন এত বিপুল সংখ্যক মানুষকে সা’মলানোর জন্য ইতোমধ্যেই প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থাই গ্রহণ করা হয়েছে।

 

আয়োজকদের প’ক্ষ থেকে স্থানীয় জনগনের জন্য সম্ভাব্য স্থানে ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহারের প্রতি জো’ড় দেয়া হয়েছে। এমনকি ম্যাচ দেখতে আসলেও সম্ভব হলে তাদেরকে নিজস্ব পরিবহনে যাতায়াত করে বিদেশী সমর্থ’কদের জন্য ট্রেন ও বাসগুলো ছে’ড়ে দেবার অনুরো’ধ জানানো হয়েছে।

 

এ সম্পর্কে কাতার আয়োজক কমিটির মবিলিট ডিরেক্টর আব্দুলাজিজ আল-মাওলাভি বলেছেন, ‘আমরা যানজটের আশ’ঙ্কা করছি। দোহার মত শহরে দিনে চারটি ম্যাচ আয়োজন সত্যিই চ্যালেঞ্জিং। তবে সব কিছুর সমাধা’নে ইতোমধ্যেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ম্যাচ দেখতে আসা সবাইকে একটু আগে ভাগেই স্টে’ডিয়ামে প্রবেশের অনুরোধ করা হচ্ছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *