কাতারে কোনো বিদেশি কর্মী যদি বেতন-ভাতা না পান অথবা কোম্পানির পক্ষ থেকে কাজ করতে গিয়ে কোনো সম’স্যায় পড়েন কিংবা কোনো ভো’গান্তির শি’কার হন, তবে সেক্ষেত্রে ওই কর্মীর উচিত তিনি সরকারি সংস্থার কাছে অভি’যোগ জানাবেন।

এক্ষেত্রে প্রথমে কাতার শ্রম মন্ত্রণালয়ে অনলাইনে বা সরাসরি হাজির হয়ে অভি’যোগ জানাতে হবে। সরকারি মন্ত্রণালয় বা সংস্থার কাছে অভি’যোগ না করে বরং সমস্যা সমাধানের দা’বিতে কোনো জমায়েত বা মিছিল করা কাতারের আইনে দ’ন্ডনীয় অপ’রাধ।

কাতার শ্রম মন্ত্রণালয় সম্প্রতি এ ব্যাপারে একটি সতর্কতামূলক নির্দেশনা দিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, কাতারের আ’ইন অনুসারে যদি কেউ কোথাও মিছিল বা জমায়েত করেন এবং সেখানে ৫ জনের বেশি মানুষের উপস্থিতি থাকে, তবে সেটি অপরা’ধ হিসেবে গণ্য হবে।

এতে কাতারের জননিরাপ’ত্তা ল’ঙ্ঘন হয়। এমন অপ’রাধে তিন বছরের জে’ল এবং সর্বোচ্চ ১৫ হাজার রিয়াল পর্যন্ত জরি’মানা করা হতে পারে। এছাড়া বিদেশি কর্মীদের দেশে পাঠিয়ে দেওয়া হতে পারে। কাতারে ২০০৪ সালে প্রণীত ১১ নং আইনের ১৩৯ নং ধারায় এই বিধান রয়েছে।

একই বিজ্ঞপ্তিতে কাতার শ্রম মন্ত্রণালয় সব কোম্পানির মালিকদের প্রতি সময়মতো বেতন পরিশোধ এবং কর্মীদের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে আহবান জানিয়েছে। অন্যথায় অভি’যুক্ত কোম্পানিগুলোর বিরু’দ্ধে ক’ঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.