রাজধানীর উত্তরায় দক্ষিণখান মোল্লারটেক এলাকায় একটি ১০ তলা ভবনের ছা’দ থেকে লাফিয়ে পড়ে এক তরুণীর আ’ত্মহ’ত্যার ঘটনা ঘটেছে। শনিবার (২৭ আগস্ট) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই তরুণীর একটি সু’ইসা’ইড নোট উ’দ্ধার করেছে দক্ষিণখান থানা পুলিশ। যেখানে তার মৃ’ত্যুর জন্য বাবাকে দা’য়ী করে গেছেন।

জানা গেছে, একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন ওই তরুণী। তিনি বাবা-মার স’ঙ্গে ওই ভবনের একটি ফ্ল্যা’টে বসবাস করতেন। ভবনটিতে তাঁদের একটি নিজ’স্ব ফ্ল্যাট রয়েছে। স্থানীয়রা জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ১০ তলা ভবনের ছাদ থেকে পড়ে গু’রুত’র আহ’ত হোন ওই তরুণী।

গু’রুত’র অবস্থায় তাঁকে প্রথমে একটি স্থানীয় হাসপাতালে এবং পরে প’ঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে গেলে বিকেল ৪টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃ’ত ঘোষণা করেন। এদিকে উ’দ্ধার করা ওই চিরকুটে লেখা রয়েছে, ‘আমার মৃ’ত্যুর জন্য আমার বা’বা দায়ী। একটা ঘরে প’শুর সাথে থাকা যায়। কিন্তু অ’মানুষের সাথে না। একজন অ’ত্যাচা’রী রে’পি’স্ট যে কাজের মেয়েকেও ছাড়ে নাই। আমি তার ক’রুণ ভা’গ্যের সূচনা।’

নিলয় নামে সানজানার বন্ধু বলেন, ‘ওর বাবা ওকে প্রায়ই মা’রধ’র করত। মা’রধরে’র কারণে মাঝে মাঝে সে ক্লাসে আসতে পারত না। ওর হাত ও শরী’রে মা’রের দাগ রয়েছে।’ ওই তরুণীর মা বলেন, ‘ওর বাবা দুটি বিয়ে করেছে। এ নিয়ে আমাদের পরিবারে অশা’ন্তি লেগেই ছিল।

একপর্যায়ে তার বাবার অ’ত্যাচা’র স’হ্য করতে না পেরে অবশেষে আমার মেয়ে আ’ত্মহ’ত্যা করেছে। আমি এর বি’চার চাই।’ এ বিষয়ে জানতে চাইলে দক্ষিণখান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আজিজুল হক মিঞা বলেন, ‘খবর পেয়ে ওই ছাত্রীর ম’রদেহ উ’দ্ধা’র করা হয়েছে।

সেই সঙ্গে ওই ছাত্রীর হাতে লেখা একটি চিরকুটও উ’দ্ধা’র করা হয়েছে। পরিদর্শক আজিজুল বলেন, ‘ম’রদেহ ময়’নাতদ’ন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ম’র্গে পাঠানো হবে। আ’ত্মহ’ত্যা’য় প্ররোচনার অভি’যোগে একটি মাম’লা প্রক্রিয়াধীন।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.