ইসরা’ইল ও ফিলিস্তি’নের দর্শকদের ফুটবল বিশ্বকাপের খেলা দেখতে আসার জন্য বিশেষ ফ্লাইটের ব্যবস্থা করেছে আয়োজক দেশ কাতার। ফুটবলের নির্বা’হী সংস্থা ফিফার প’ক্ষ থেকে এ কথা জানানো হয়েছে।

 

কাতার ও ইসরাইলের মধ্যে কোনো ধরনের কূটনৈ’তিক সম্প’র্ক নেই। সে কারণেই বিশ্বকাপের সময় অস্থা’য়ীভাবে গু’টি কয়েক ফ্লাইট চালু করা হয়েছে শুধুমাত্র ইসরাইল ও ফিলিস্তি’নি সমর্থকদের জন্য। ফিফার এক বিবৃ’তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

 

চার্টার এই ফ্লাইটে কতজন ফিলিস্তি’নি সমর্থক থাকবেন সে ব্যপারে স্প’ষ্ট করে কিছু জানা যায়নি। ফিলিস্তি’নি নাগরিকদের জন্য ইসরাইলের আন্তর্জাতিক বেন গু’রিয়ন বিমানবন্দরে প্রবেশে কঠোর নিষেধা’জ্ঞা রয়েছে। ফিফা জানিয়েছে, ইসরাইলি নিরাপ’ত্তাজনিত সব ধরনের শর্ত মেনেই ফিলিস্তি’নিদের জন্য কাতারে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

 

এই চার্টার বিমানে যাতায়াতকারী সব দর্শককে অবশ্যই ম্যাচ টিকিট ও কাতারের বিশেষ ফ্যান পাস ‘হায়া কার্ড’ থাকতে হবে। কূটনৈতিক সূত্র অনুযায়ী জানা গেছে, ১০ হাজারের বেশি ইসরাইলি-ফিলিস্তি’নি সমর্থক ইতোমধ্যেই ম্যাচ টিকিট ও হায়া কার্ড সংগ্র’হ করেছেন।

 

বিশ্বকাপ আয়োজক দেশের জন্য আ’রোপিত ফিফার শর্তানুযায়ী, কাতার কোনো দেশের সমর্থকদের তাদের দেশে প্রবেশে নিষে’ধ করতে পারবে না। এ কারণেই ইসারা’ইলি সমর্থকদের বিশ্বকাপ দেখার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য দীর্ঘদিন ধরে আলোচনা চলে আসছিল।

 

একটি সূত্র জানিয়েছে, কাতার বিশেষ বিমানে শুধুমাত্র ফিলিস্তি’নিদের আনার ব্যাপারে মত দিয়েছিল। ইসরাইলের বিদা’য়ী প্রধানমন্ত্রী ইয়ায়ির লাপিদ কাতারের এই সি’দ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে এই বিষয়টি নিয়ে আমরা কাজ করেছি।

 

শেষ পর্যন্ত ইসরা’ইলি নাগরিকদের জন্য বিশ্বকাপ দেখার সুযোগ হচ্ছে। বিশ্বকাপ দেখতে আসা ইসরাইলিদের জন্য সব ধরনের তথ্য প্রদানের ল’ক্ষ্যে আমরা কাতারে একটি ইসরাইলি অফিসও চালু করেছি।

 

এ ব্যাপারে ফিফা জানিয়েছে, ইসরা’ইলি কনস্যুলার বিভাগের পরিচালনায় আন্তর্জাতিক ট্র্যাভেল কোম্পানি নামক অফিসটির কার্যক্রম আগামী ১৮ ডিসেম্বর শেষ হবে। সূত্র : বাসস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *