স্ত্রীর প্রায় মা’রধ’র করতেন, সংসারে অশা’ন্তি লেগেই থাকতো এসব কারণেই ভারতের উত্তর প্রদেশের মৌ জেলার বাসিন্দা রাম প্রবেশ নামের এক ব্যাক্তি একটি পাম গাছের চূড়ায় বসবাস করছেন। সংসারে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিবাদ হওয়াটা স্বা’ভাবিক হলেও ওই ব্য’ক্তি প্রতিদিনের এমন নি’র্যাত’ন মে’নে নিতে না পেরেই প্রায় এক মাস যাবত গাছেই বসবাস করছেন।

গাছটির উচ্চতা প্রায় ১০০ ফিট। রাম প্রবেশের এমন কা’ন্ডে পা’গল প্রায় নেটিজেনরা। অনেকেই বলেছেন ঝগ’ড়া-বি’বাদ যে খারা’প দিকে মো’ড় নিতে পারে এটিই তার একটা প্রমান। এ ঘটনায় রাম প্রবেশের বাবা ভিনসুরাম জানিয়েছেন, প্রতিনিয়ত স্ত্রীর সাথে ঝ’গড়া লেগেই থাকতো তাই ছেলে রাগে ক্ষো’ভে দীর্ঘ এক মাস পামগাছে বসবাস করছেন।

ভিনসুরাম আরও জানান, প্রায় প্রতিদিন স্ত্রী তাকে মা’রধ’র করতেন। ক্রমাগত ল’ড়াইয়ে ক্লান্ত হয়ে রাম তাল গাছে বাস করার সিদ্ধান্ত নেন। স্ত্রীর সঙ্গে অনবরত ঝগ’ড়ার জেরে ছেলে প্রবেশ প্রায় গাছে বাড়ি বানিয়ে ফেলেছে। তবে এ ঘটনায় গ্রামবাসীরা অভি’যোগ করে বলেছেন, রামের গাছে বসবাস তাদের গোপ’নীয়তা’র আ’ক্রম’ণ।

যেহেতু গাছটি প্রায় ১০০ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত এবং এর পাশেই একটি পু’ল রয়েছে, তাই মহিলাদের পাশাপাশি গ্রামবাসীদের দৈন’ন্দিন কাজকর্ম ব্যাহত হয়। তারা অভি’যোগ করেছেন যে তাদের বাড়ির আ’ঙিনাগুলি সমস্তই রামের কাছে দৃশ্যমান, গো’প’নীয়তার অ’ভাবকে নির্দেশ করে।

গ্রামবাসীরা আরও দা’বি করেছেন যে তারা রামকে গাছ থেকে নামানোর চেষ্টা করলে সে তাদের দিকে ইট ছু’ড়ে মা’রে। এলাকাবাসী আরও অভিযোগ করেন রাম গভীর রাতে গাছে উঠেন এবং তার দৈনন্দিন কাজকর্ম শেষ করে ফিরে আসেন। স্থানীয় পুলিশকে এই অস্বাভাবিক ঘটনার কথা জানানো হয়েছে।

তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতির একটি ভি’ডিও রে’কর্ড করে, শী’ঘ্রই কিছু ব্যবস্থা নেওয়ার দা’বি জানায়। এ ঘটনায় দী’পক নামে বারসাথপুরের গ্রামপ্রধান নিশ্চিত করেছেন যে রাম এবং তার বাবার মধ্যে চলমান বি’বাদ ছিল যার কারণে প্রাক্তনটি একটি বাড়ি তৈরি করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.