এবার ৩৪ বছর বয়সী রমজান ছৈয়ালের প্রে’মে পড়ে শরীয়তপুরের নড়িয়ায় এসেছেন তাইওয়ানের তরুণী লিইউ হুই। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদের বিয়ে হয়। ৩১ বছরের লিইউ হু’ই নামও পরিবর্তন করেছেন। স্বামীর স’ঙ্গে মিল রেখে নাম রেখেছেন নিনা ছৈয়াল।

 

রমজানের বাড়ি নড়িয়া পৌর শহরের ৮ নম্বর পশ্চিম লোনশিং গ্রামে। তিনি একই গ্রামের জামাল উদ্দিন ছৈয়ালের ছেলে। মা-বাবা আর ভাইকে নিয়েই সোমবার বাংলাদেশে আসেন তাইওয়ানের এ তরুণী। একই দিন ঢাকার আদালতে আই’নজী’বীর মাধ্যমে ই’সলা’ম ধ’র্ম গ্র’হণ করে নিজের নাম রাখেন নিনা।

 

এরপর মঙ্গলবার রমজানের বাড়িতে আসেন তা’রা। রমজান বলেন, মাধ্যমিক পা’স করে ছয় বছর আগে মালদ্বী’পে যাই। সেখানে আমি ও নিনা একই কো’ম্পানিতে কাজ করতাম। কাজের সুবাদে আমাদের ব’ন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। এরপর প্রেমে রূ’প নেয়। দুই বছর আগে আমি বাংলাদেশে ও নিনা নিজ দেশে ফিরে যান। তবে আমাদের যো’গাযোগ ছিল।

 

পরে দুবাইয়ে চাকরি হয় নি’নার। ভালোবাসার টানে আ’মিও দুবাই যাই। অবশেষে বিয়ে করতে নিনা বাংলাদেশে আসেন। ভাঙা ভা’ঙা গলায় নববধূ নিনা ছৈয়াল বলেন, আমি বাংলাদেশকে ভালোবাসি। রমজানকেও ভালোবাসি। তার স’ঙ্গে বিয়ে হওয়ায় আমি আন’ন্দিত।

 

রমজানের ভা’তিজি নিশি আক্তার বলেন, আমরা আন’ন্দিত। কাকা-কাকির উজ্জ্বল ভবি’ষ্যৎ কামনা করি। ভা’ষাগত কিছু সম’স্যা থাকলেও সবকিছুতেই মা’নিয়ে নিচ্ছেন নিনা। বাঙালি পোশা’কও পরেছেন তিনি। কাল রাতে গায়ে হলুদ ছিল তাদের।

 

বুধবার সকাল থেকে নবব’ধূকে দেখার জন্য আমাদের বাড়িতে ভি’ড় করছেন আ’শপাশের লোকজন। নড়িয়া পৌরসভার সাবেক মেয়র শহীদুল ইসলাম বাবু বলেন, প্রেমের টানে তা’ইওয়ান থেকে আমাদের এলাকায় মা-বাবা ও ভাইকে নিয়ে এসেছেন এক তরুণী। তাদের স’ঙ্গে আমি কথা বলেছি। আমাদের আতিথে’য়তায় তারা মু’গ্ধ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *