বন্যায় বিপর্যস্ত পাকিস্তান। দেশটিতে বন্যাকবলিত এলাকায় মৃ’তের সংখ্যা হাজার ছাড়িয়েছে। পরিস্থিতি নিয়’ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় বিশ্ববাসীর কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছিল পাকিস্তান। সেই আবেদনে সা’ড়া দিয়েছে কাতার, পাঠিয়েছে ত্রাণ সমগ্রী। কাতার ছাড়াও ত্রাণ পাঠিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত, তুরস্ক এবং আজারবাইজানসহ অনেক দেশ।

এসব দেশ থেকে নানা ধরণের ত্রাণ ও ওষুধ পাকিস্তা’নে পাঠানো হচ্ছে। অনেকে আবার এমন পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের প্রতি সংহ’তি প্রকাশ করেছেন। খবর ডনের। রবিবার রাত ৮টার দিকে বন্যার্তদের জন্য ত্রাণসামগ্রী নিয়ে তুরস্কের প্রথম বিমানটি অবতরণ করে। তার প্রায় দুই ঘণ্টা পরে তুরস্ক থেকে আরেকটি বিমানও ১৪ টন ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে করাচিতে অবতরণ করে।

আরও ত্রাণ পাঠানোর প্র’তিশ্রুতি দিয়েছে তুরস্ক। একইভাবে, তুর্কি রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি (টিআরসিএস), পিআরসিএস-এর সহযোগিতায় বন্যা’র্তদের সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। পাশাপাশি কাতার ও সংযুক্ত আরব আমিরাতও পাকিস্তানে ত্রাণ পাঠিয়েছে। পোপ ফ্রান্সিস রবিবার মধ্য ইতালির লা কুইলা শহরে সফরের সময় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে পাকিস্তানকে সাহায্য করার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

কানাডা সরকার পাকিস্তানে বন্যায় ত্রাণ কা’র্যক্রম পরিচালনার জন্য ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অফ রেড ক্রস এবং রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিতে অর্থ বরাদ্দ করেছে। কানাডা জাতিসংঘের সেন্ট্রাল ইমার্জেন্সি রেসপন্স ফান্ড (সিইআরএফ) এরও দাতা। সেখানেও তারা তিন মিলিয়ন ডলার বরা’দ্দ করেছে বন্যার্তদের জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.