কাতারে মাঠে নামানোর আগে বলকে দিতে হয় চার্জ, বলের ভিতরে আছে ব্যাটারি

চলতি কাতার বিশ্বকাপের অফিসি’য়াল বল ‘আল রিহলা’। এই বলের সাম্প্র’তিক একটি ছ’বি সবাইকে অবা’ক করেছে। ওই ছ’বিতে দেখা গেছে, মোবাইল, ল্যাপটপের মতোই ফুটবলটিকে চা’র্জ দেওয়া হচ্ছে।

 

পাশাপাশি রাখা বলগুলোকে একসাথে চা’র্জ দিতে দেখা যায়। কেন এবারের বলে চার্জ দিতে হচ্ছে? রহ’স্যটি ঠিক কী? বলের নির্মাতা কোম্পানি অ্যাডিডাস জানিয়েছে এর মূল রহ’স্য।

 

তারা জানিয়েছে, এবারের বলগুলো অন্যবারের থেকে আলা’দা। এ বলের ভেতরে সে’ন্সর বসানো আছে। ম্যাচের সময় সেসব সে’ন্সর থেকে প্রতি মুহূ’র্তে সা’র্ভারে পাঠানো হচ্ছে তথ্য। এই সে’ন্সর এতটাই শ’ক্তিশালী যে, প্রতি সেকেন্ডে ৫০০ বার তথ্য পাঠাতে পারে।

 

বলের স’ঙ্গে কোনও কিছুর স্প’র্শ হলেই তার নির্ভু’ল তথ্য চলে যাচ্ছে সার্ভারে। সেই সে’ন্সরকে চালু রাখতে তার সাথে যু’ক্ত করা হয়েছে ১৪ গ্রাম ওজনের একটি ব্যাটারি। আর সেই ব্যাটারি সচল রাখতে ম্যাচের আগে তা চা’র্জ দেওয়া হয়।

 

একবার চা’র্জে ছয় ঘণ্টা চলে। তাই সে’ন্সর থেকে নির্ভু’ল তথ্য পেতে প্রতি ম্যাচের আগে বল চার্জ করা জরুরি। বলের মধ্যে সে’ন্সর থাকার গুরুত্ব এবার বোঝা গেছে পর্তুগাল-উরুগুয়ের ম্যাচে। যেখানে রোনালদোর একটি গো’ল নিয়ে বিত’র্ক তৈরি হয়েছে।

 

রোনালদোর দা’বি, তার মা’থা ছুঁ’য়েই বল জালে ঢুকেছে। কিন্তু অন্যরা বলছেন, গোলের মালিক ব্রু’নো ফার্নান্দেজ। এতে রোনালদোর কোনো অবদা’ন নেই। বিতর্কের অবসানে একসময় বলের তথ্য সং’গ্রহ করা হয়।

 

জানা যায়, রোনালদোর সাথে বলের কোনও স্প’র্শই হয়নি। এদিকে বল প্রস্তু’তকারী সংস্থা অ্যাডিডাস বলছে, আমাদের প্রযুক্তি বলছে, ওই সময় রোনালদোর কোনো স্প’র্শ লাগেনি বলে। বল গোলের দিকে যাওয়ার সময় যে স্প’ন্দন আমরা দেখেছি, তা থেকে আমরা বিষয়টি সম্প’র্কে নিশ্চিত হয়েছি।

এই ক্যাটাগরির আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *