এবার সারের দাম বেড়েছে অনেক। স’ঙ্গে বেড়েছে সেইসব কৃষকের ক্ষোভ, যাদের এই সার সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন। শেষে ক্ষো’ভ মেটাতে কিনা সরকারি কর্মকর্তাকেই খুঁ’টির সঙ্গে বাঁধলেন কৃষকরা! মূলত সারের মজুদ এবং ‘কা’লো বাজারির’ কারণে ক্ষু’ব্ধ কৃষকরা ওই কর্মকর্তাকে দড়ি দিয়ে বেঁ’ধে রাখেন। চাঞ্চ’ল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের বিহার রাজ্যে।

আজ মঙ্গলবার ৩০ আগস্ট এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবা’দমাধ্যম এনডিটিভি। সেই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সারের মজুদ ও ‘কা’লো বাজারির’ কারণে ক্ষু’ব্ধ কৃষকরা বিহারের মতিহা’রিতে একজন সরকারি কর্মকর্তাকে খুঁ’টির সাথে বেঁধে রেখেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগী ওই কর্মকর্তার নাম নিতিন কুমার। তিনি বিহারের কৃষি বিভাগের একজন উপদে’ষ্টা এবং ‘কিষান সালাহকার’ হিসাবে কাজ করেন।

এদিকে নিতিন কুমারকে খুঁ’টির সাথে বেঁ’ধে রাখার ছ’বি ও ভি’ডিও ছ’ড়িয়ে পড়েছে। সেখানে ভু’ক্তভো’গী ওই সরকারি কর্মকর্তাকে ফোনে কারও কাছে নিজের দু’র্দশা’র কথা বর্ণনা করতে দেখা যায়। এনডিটি’ভি বলছে, কৃষকদের দা’বি যে, তারা পর্যাপ্ত পরিমাণে সার পাচ্ছেন না এবং যে পরিমাণে পাওয়া যায় তার জন্য অনেক বেশি মূ’ল্য দিতে হচ্ছে।

আর এর প্রতি’বাদে সরকারি ওই কর্মকর্তার স’ঙ্গে করা তাদের আচ’রণের ভি’ডিও সোশ্যাল মিডি’য়ায় ভাই’রাল হয়েছে। কৃষকদের অভি’যোগ, কৃষি বিভাগের উপদেষ্টা নিতিন কুমার সার বিক্রে’তাদের স’ঙ্গে হাত মিলিয়ে দাম বাড়াচ্ছেন। তারা বলছেন, এক বস্তা ইউরিয়া ২৬৫ রুপিতে বিক্রি করে সরকার। কিন্তু সেই একই পরিমাণ সার স্থানীয় দোকানদাররা ৫০০ থেকে ৬০০ রুপিতে বিক্রি করে।

অবশ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় নিতিন কুমারকে বেঁ’ধে রা’খার ভি’ডিওটি প্রকাশের সাথে সাথে স্থানীয় প্র’শাসন তৎ’পর হয়ে ওঠে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, ভি’ডিও ভা’ইরা’লের পর এলাকার সার্কেল অফিসার ঘটনাস্থলে গিয়ে নিতিনকে ছে’ড়ে দিতে কৃষকদের রাজি করান এবং সরকারি মূল্যে সার হাতে পাওয়ার বিষয়ে তাদের আ’শ্বস্ত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.