কাতার থেকে ৯ দিন পর তুষারের লাশ আসতেই কফিন জড়িয়ে ধরলেন মা!

কাতারে সড়ক দু’র্ঘটনা’য় নিহ’ত হওয়ার ৯ দিন পর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রেজুয়ানুল হক তুষারের (২৫) ম’রদেহ দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। বুধবার (১১ জানুয়ারি) বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শহরের বোডিং মাঠ এলাকায় নিজ বাড়িতে তুষারের ম’রদে’হ এসে পৌঁছায়। নিহ’ত তুষার ওই এলাকার মৃ’ত হামিদুল হকের ছেলে।

 

বাড়িতে তুষারের ম’রদে’হ এসে পৌঁছালে এক হৃদয়বিদারক দৃ’শ্যের সৃষ্টি হয়। অ্যাম্বুলেন্স থেকে ক’ফিন নামানোর পরেই মা আখিনূর আক্তার রেখা সন্তানের ম’রদে’হের ক’ফিন জ’ড়িয়ে ধরেন। একমাত্র বোন জুঁই তার ভাইয়ের ম’রদে’হের উপর কা’ন্নায় লু’টিয়ে পড়েন। এসময় পুরো বাড়ি জু’ড়ে কা’ন্নার রোল পড়ে যায়।

 

পরে ট্যাংকের পাড় মাঠে বাদ আসর তুষারের নামাজের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। সেখান থেকে শহরের শেরপুর মীর শাহাবুদ্দিন (রঃ) মাজার কবরস্থানে তাকে দা’ফন করা হয়। পরিবারের সদস্যরা জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার নাটাই উত্তর ইউনিয়নের মৃ’ত হামিদুল হকের একমাত্র ছেলে রেজুয়ানুল হক তুষার।

 

বাবা মা’রা যাওয়ার পর পরিবারের হাল ধরতে কাতারে পাড়ি দেন তুষার। গত সোমবার (২ জানুয়ারি) কাতারের ছালোয়া রোডে ট্রাক চাপায় মা’রা যায় তুষার। তুষারের ভ’গ্নিপতি শাহনেওয়াজ ভূঁইয়া রাকিব জানান, বাবা মা’রা যাওয়ার এক বছর পর পরিবারের হাল ধরতে জী’বিকার তাগিদে তু’ষার কাতার প্রবাসে পাড়ি দেয়।

 

সে কাতারে একটি প্রতিষ্ঠানে ফুড ডে’লিভারির কাজ করতো। সোমবার (২ জানুয়ারি) সকালে মোটরসাইকেলে খাবার ডেলিভারি দিতে যাওয়ার সময় পেছন থেকে একটি ট্রাক তুষারকে চা’পা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তুষার নিহ’ত হন। রাকিব আরও জানান, প্রবাসে যাওয়ার পর গত ৭ বছরে একবারও দেশে আসেনি।

 

গত ৬ মাস আগে মোবাইলে পারিবারিক ভাবে জেলার আখাউড়া উপজেলার মোগড়ায় বিয়ে করেন তুষার। কিছুদিনের মধ্যে দেশে ফিরে আনুষ্ঠানিক ভাবে নববধূকে ঘরে তু’লার কথা ছিল তার। কিন্তু ভাগ্যের নি’র্ম’ম পরিহাস দেশে ফেরা হয়’নি তুষারের, নববধূকেও ঘরে তোলা হয়নি। তিনি আরও জানান, তুষারের মা প্রতি’ক্ষায় ছিলেন ছেলে দেশে ফিরে আসবে। ধুমধামে ছেলের বিয়ের আয়োজন করে পুত্রবধূকে ঘরে তুলে আনবেন। কিন্তু সেই স্বপ্ন আর পূরণ হয়নি তুষারের মায়ের।

এই ক্যাটাগরির আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *