আফগানিস্তানের বিপ’ক্ষে বাংলাদেশের এশিয়া কাপের স্মৃতি মোটেও ভালো নয়। এর আগে দু’বার এশিয়া কাপের ল’ড়াইয়ে আফগা’নদের কাছে হা’রতে হয়েছিল টাইগারদের। পরিসংখ্যানকে নিজেদের পক্ষে নিয়ে আসতেই মঙ্গলবার শারজাহতে রশিদ-নবীদের মুখোমুখি হয়েছিল সাকিব-মুশফিকরা।

তবে এবারও ফলাফল নিজেদের পক্ষে নিয়ে আসতে পারেনি সাকিবের দল। নাজিবুল্লাহ জাদরানের বি’ধ্বংসী ব্যাটিংয়ে এশিয়া কাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আফগানদের বিপ’ক্ষে হার দিয়েই শুরু করতে হলো বাংলাদেশকে। ছোট লক্ষ্য ব্যাটিংয়ে নেমে কাছের জয়কেই একসময় ব’হুদুরে দেখতে হয়েছিল আফগানদের।

কিন্তু মোস্তাফিজ-সাইফউদ্দিনের বোলিং ব্যা’র্থতা ও নাজিবুল্লাহ জাদরানের বিধ্বংসী রূপে ১২৮ রানের টার্গেট ৯ বল ও ৭ উইকেট হাতে রেখেই টপকে যায় মোহাম্মদ নবীর দল। মাত্র ১৭ বলে ৪৩ রানের ইনিংসে অপরা’জিত থেকে যান নাজিবুল্লাহ জাদরান।

ম্যাচ শেষে আফগান অধিনায়কের কন্ঠেও ঝড়ল তার প্রশংসা। মোহাম্মদ নবী বলেন, সাধারণত আমাদের প্রথম তিনজন ব্যাটসম্যানকে নিয়ে কথা হলেও শেষের দিকে নাজিবুল্লাহর মতো বিধ্বংসী ব্যাটারও রয়েছেন। উইকেট যথেষ্ট ধীরগতির ছিল। বল নিচু হয়ে আসছিল। কিন্তু নাজিবুল্লাহ ব্রিলিয়ান্ট ব্যাটিং করেছেন।

নবীকে প্রশ্ন করা হয় আপনারা তো বাংলাদেশি দর্শকদের থেকেও সাপোর্ট পান। উত্তরে নবী বলেন, আমরা যখন দুবাই অথবা শারজাহতে খেলি, অনেক ফ্যানসরাই আমাদের সাপোর্ট করতে আসে। কিন্তু আজ বাংলাদেশি সমর্থকদের স্লোগানে তারা আমাদের সমর্থকদের হারিয়ে দিয়েছে।

নবী এই জয়ে কৃতি’ত্ব দিচ্ছেন তার দলের সেরা দুই স্পিনার রশিদ খান ও মুজিব উর রহমানকেও। দুজনেই এই ম্যাচে বাংলাদেশের বিপ’ক্ষে তিনটি করে মোট ছয়টি করে উইকেট নিয়েছেন। আফগান অধিনায়ক বলেন, সকলেই জানেন তারা বিশ্বমানের বোলার। তারা শুধু সেই কা’জটাই আজ আবারও করে দেখালো।

বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিবের প্রশংসাও করেছেন নবী। তিনি বলেন, সাধারণত পাওয়ারপ্লেতে গুরবাজ বেশ ভালো স্ট্রাইকরে’টে ব্যাটিং করেন। আজকেও সেই চে’ষ্টাই করেছেন। কিন্তু পারেননি। কারণ সাকিব দূর্দান্ত বো’লিং করেছে। পাওয়ারপ্লেতে তার তিন ওভারে রান বের করা মোটেও সহজ ছিল না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.