৮২ বছর বয়সী মর্জিনা বেগম। থাকতেন ছোট ছেলে মনিরুল ইসলামের বাড়িতে। কিন্তু ছেলের বউয়ের স’ঙ্গে ব’নিবনা হচ্ছিল না তার। একপর্যায়ে বউয়ের কথায় রাস্তার পাশের একটি পরিত্য’ক্ত জ’ঙ্গলে মাকে ফেলে চলে যান মনিরুল। শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার বালিগ্রাম এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

 

পরে স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপ’স্থিত হয়ে ওই বৃদ্ধাকে উ’দ্ধার করেন জেলা কৃষক লীগের সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য আব্দুল হাকিম। তিনি ওই বৃদ্ধার চিকিৎ’সার দায়িত্ব নেন। বৃ’দ্ধার বাড়ি জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার ধাইনগর ইউনিয়নের চৈতন্যপুর-নাককাটিতলা গ্রামে। তিনি মৃ’ত সইবুর রহমানের মেয়ে মর্জিনা বেগম। মর্জিনা বেগম তিন মেয়ে ও দুই ছেলে সন্তানের মা।

 

স্থানীয় বাসিন্দা সোহেল রানা ও আবুল কাশেম জানান, পৌর এলাকার বালিগ্রাম মহল্লার একটি পরিত্য’ক্ত জায়গায় স্থানীয়রা এক বৃদ্ধাকে পড়ে থাকতে দেখে। বিষয়টি তারা সাবেক জেলা পরিষদের সদস্য আব্দুল হাকিমকে জানায়। পরে বৃ’দ্ধার খোঁজ-খবর নিয়ে স্থানীয় যুবকদের সহযোগিতায় তাকে উ’দ্ধার করা হয়।

 

জেলা কৃষক লীগের সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য আব্দুল হাকিম বলেন, সকালে স্থানীয় কয়েকজন যুবক আমার কাছে এসে বলেন জ’ঙ্গলে এক বৃদ্ধা পড়ে আছেন। পরে তাদের স’ঙ্গে নিয়ে বৃদ্ধাকে উ’দ্ধার করে একই এলাকায় তার এক মেয়ের বাড়িতে রেখে আসি। তার সব চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছি। নিজ খরচে তাকে চিকি’ৎসা প্রদান করে সুস্থ করে তুলব, ইনশাআল্লাহ।

 

তিনি আরো বলেন, একজন ছেলে কীভাবে তার মাকে ফেলে যেতে পারে, বিষয়টি ভেবে অবা’ক হয়েছি। অ’ত্যন্ত অ’মানবিক কাজ করেছে তার ছেলে ও ছেলের বউ। বৃদ্ধার ছেলের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছি। বৃ’দ্ধার চিকিৎসার পাশাপাশি ভরণপোষণের দায়িত্ব নিয়েছি বলেও জানান তিনি।

 

বৃদ্ধা মর্জিনা বেগম বলেন, ফেলে যাওয়ার আগ পর্যন্ত মর্জিনা বেগম ছোট ছেলে মনিরুল ইসলামের বাড়িতে ছিলাম। শুক্রবার সকালে ছোট বোনের বাড়ির পাশে একটি জ’ঙ্গলে মাকে ফেলে পালিয়ে যায় মনিরুল। ছেলের বউয়ের সঙ্গে ব’নিবনা না হচ্ছিল না আমার। তাই বউয়ের কথায় আমাকে জঙ্গলে ফেলে গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.