‘আমার যদি কিছু একটা হয়ে যায় এর দা’য়ভার কে নেবে? আমি যদি ভু’লভাল কিছু একটা করে ফেলি তাহলে দায়ভার কে নেবে? যিনি বা যারা আমার শু’টিংয়ের ছবি ছড়িয়ে মি’থ্যে র’টাচ্ছে তারা কেন এটা কর’ছে? তাদেরও তো পরিবার আছে, তাদের বোঝা উচিত যে এসব ব্যক্তিমা’নুষকে কতটা ক্ষ’তি করে, আমি তো মানুষ আমারও তো পরিবার আছে…’

 

সোমবার দুপুরে কা’লের ক’ণ্ঠের সঙ্গে আলা’পকালে তার সাম্প্রতিক ভা’ইরা’ল হওয়া কিছু ছবি ও এর নেপ’থ্যের কথা বলতে গিয়ে, এভাবেই বলছিলেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পূজা চেরি। ‘পরী’ নামের একটি ওয়েব ফি’ল্মের শু’টিং করেছেন পূজা চেরি। সেখানে একজন বার ড্যা’ন্সার ভূমিকায় কাজ করছেন তিনি।

 

যাকে বাংলাদেশ থেকে পা’চার করে ব্যাং’ককে নিয়ে যাওয়া হয়। কৌশলে সে দেশে ফিরে আসার চে’ষ্টা চালাতে থাকে। ‘পরী’ সিনেমায় ছোট পর্দার অভিনেতা ফারহান আহমেদ জোভানের স’ঙ্গে জুটি বেঁ’ধেছেন তিনি। এটি পরিচালনা করছেন নাট্য নির্মাতা মাহমুদুর রহমান হিমি।

 

এই ওয়েব ফিল্ম করতে গিয়ে পূজা চেরি ও জো’ভানের বেশ কয়েকটি ঘ’নি’ষ্ঠ’ ছবি সামা’জিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছ’ড়িয়ে পড়ে। এই ছবিগুলোকে নে’টিজেনদের একাংশ দা’বি করছেন, একান্তে সময় কা’টাতে গিয়েছিলেন পূজা ও জোভান―আর গো’পনে সেখানকার স্থানীয় একজন বা’ঙালি এই মুহূ’র্তের ছ’বি তুলেছেন। বিষয়টি নিয়ে নির্মাতা মাহমুদুর রহমান হিমির স’ঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, ছড়িয়ে পড়া ছবিগুলো শু’টিং’য়ের ছবি।

 

হিমি বলেন, ‘যেসব ছবি দেখছেন এসব ওয়েব ফি’ল্মের শু’টিংয়ের অংশ। সেখানে আমরা গো’প’ন ক্যা’মেরা দি’য়ে শু’টিং করেছি। এসব শু’টিং’য়ের বাইরের ছবি বলার কোনো অবকা’শ নেই।  হিমি গো’প’ন ক্যা’মে’রা বললেও পূজা চেরি বলছেন, সেখানে অনুমতি নিয়েই শু’টিং করা হয়েছে।

 

পূজা চেরি রবিবার দুপুরে কা’লের ক’ণ্ঠের সঙ্গে আলা’পকালে বলেন, ‘আমরা প্রথমে অনুমতি নিতে পারিনি, পরে আমাদের সেখানকার প্রযোজক আইন’গতভাবে সব ব্যবস্থা নেওয়ার পরে আমরা শু’টিং করি। সেই শু’টিংয়ের ছবি ছড়িয়ে মি’থ্যে কথা র’টানো হচ্ছে। নির্মাতা হিমির শে’য়ার করা ছ’বি। যা প্রমাণ করে জোভান ও পূজার ছ’ড়িয়ে প’ড়া ছবিগুলো শু’টিংয়ের, এমনটাই দা’বি নির্মাতার।

 

ছড়িয়ে পড়া স্থি’র ছবিতে জোভানের সঙ্গে যেভাবে দেখা গেছে সেভাবেই ওয়েব ফিল্মেও দেখা যাবে বলে জানান পূজা চেরি। তিনি বলেন, ‘সেখানে কোনো নে’তিবা’চক নেই। কেউ একজন গো’পনে শু’টিংস্প’ট থেকে ছ’বি তুলেছে। এরপর সে রং মিশিয়ে দেশে ছবি পাঠিয়ে নানা কথা বলছে। আর দেশের কিছু মানুষ সেভাবেই প্র’চার করছে। সবার পরিবার আছে, মি’থ্যে ছ’ড়া’নো অন্যায়, আমি আর কী বলব, তাদের ফ্যামিলি আছে, আমারও ফ্যামিলি আছে। তাদের বোঝা উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.