গেল ২ সেপ্টেম্বর মুক্তি পায় ‘ভাইয়ারে’ সিনেমা। মু’ক্তির প্রথম দিন সিনেমাটি ‘পা’পমু’ক্ত’ বলে দা’বি করেন এর অভিনেতা রাসেল মিয়া। এনিয়েই আলোচনা-স’মালো’চনার পা’রদ চড়ছে। এছাড়াও একজন বাউল শিল্পীর নামে মা’মলা এবং সা’জাপ্রা’প্ত যু’দ্ধাপ’রাধী’র মু’ক্তির দা’বি করে তার বক্তব্য নতুন বিত’র্কের সৃষ্টি করে।

 

সেই সঙ্গে তার বিরু’দ্ধে অভি’যোগ উঠেছে, নারীর প্রতি স’হিং’সতা উসকে দেয় এমন দৃশ্যে অভিনয় করার। এ বিষয়ে রাসেল মিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি বিত’র্ক এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। ‘পা’পমু’ক্ত’ সিনেমা বলার কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন, সিনেমাটি করতে গিয়ে কারও হাত পর্যন্ত ধরে’ননি।

 

তিনি বোঝাতে চেয়েছেন যে ‘ভাইয়ারে’ ছবিটি করতে গিয়ে তারা ব্যক্তিগত কোনো পা’প করেননি! ব্য’ক্তিগত পা’প ছাড়াও যে চলচ্চিত্র অ’ঙ্গনে শত শত সিনেমা নির্মাণ হয়েছে, এর উদাহরণ ই’ন্ডাস্ট্রিতে আছে। তবে ব্যক্তিগত পা’পের সঠিক ব্যাখ্যা দিতে পারেননি তিনি। অন্যদিকে সা’জাপ্রা’প্ত যু’দ্ধাপরা’ধীর মু’ক্তির দা’বির বিষয়ে ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘একটি অনুষ্ঠানে গিয়েছিলাম। সেখানে আমাকে প্রশ্ন করা হয় দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী সম্প’র্কে।

 

তখন আমি বলেছি, কিন্তু আমি নিজে থেকে কিছু বলিনি।’ এদিকে ‘পা’পমু’ক্ত’ সিনেমা দা’বি করার কয়েক দিন পরই রাসেল মিয়ার শু’টিংয়ে’র একটি অ’ন্তর’ঙ্গদৃ’শ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছ’ড়িয়ে পড়ে। এরপর বেশ কয়েকটি গণমাধ্যমও সংবাদ প্রকাশ করে। এ বিষয়ে রাসেল মিয়া বলেন, ইচ্ছাকৃ’তভাবে তাকে সামাজিকভাবে হে’য় করার জন্য এটি ছ’ড়ানো হয়েছে।

 

অন্যদিকে সিনেমাকে ‘পা’পমু’ক্ত’ দা’বি করায় চলচ্চিত্রাঙ্গনের অনেককে ছোট করা হয়েছে বলে ম’ন্তব্য করেন দেশের কয়েকজন নির্মাতা ও প্রযোজক। তারা বলছেন, ‘এরকম বে’কারগ্র’স্ত মানুষের জন্য আমাদের শিল্পের আজ এই অবন’তি। সিনেমা তো সিনেমাই, সেখানে পা’প বলে কি বোঝাতে চেয়েছেন উনি তা উনিই ভালো জানেন। তবে তার বি’রু’দ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সময় এসেছে।’

 

বিষয়টি নিয়ে পারিচালক সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান উ’ত্তেজি’ত হয়েই বলেন, ‘এরকম মানসি’কতার মানুষকে এফডিসিতেই ঢু’কতে দেয়া উচিত নয়। এমন কাজ দ্বিতীয়বার কেউ যেন না ঘ’টাতে পারে, সেজন্য তার বি’রু’দ্ধে আমরা অ্যা’কশ’নে গিয়েছি। ঘটনাটি শোনার পর থেকে তাকে খোঁজা হচ্ছে, কিন্তু বিত’র্ক সৃষ্টি করে তিনি পা’লিয়ে বেড়াচ্ছেন।’

 

পরিচালক সমিতি থেকে কোনো নো’টিশ দেয়া হয়েছে কি না–জানতে চাইলে সোহান বলেন, ‘তার কোনো ঠিকানা আমরা জানি না। চিঠি দেব কা’কে? তবে সে যদি এফডিসিতে আসে আর আমরা যদি তাকে পাই, তাহলে তার বি’রু’দ্ধে ক’ঠোর ব্যবস্থা নেব। সিনেমা ‘পা’পমু’ক্ত’ বলতে কী বোঝায় তা জানতে প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরুর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সিনেমা একটি শিল্প। এই শিল্প আমাদের সংস্কৃ’তির কথা বলে, এই শিল্প মানুষের কথা বলে। তাই সিনেমা সিনেমাই, ‘পা’পমু’ক্ত’র সঙ্গে এর কোনো সম্প’র্ক নেই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.