হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল ২০২৩ সালের অক্টোবরে উদ্বোধ’ন করা হবে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী। তিনি বলেন, এরইমধ্যে এই প্রকল্পের নির্মাণকাজের ৪৪.১৫ শ’তাংশ অগ্রগতি হয়েছে।

 

সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনালের নি’র্মাণকাজ পরিদর্শন শেষে একথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, বাংলাদেশে চলমান বড় যে কয়েকটি প্রক’ল্প রয়েছে তার মধ্যে তৃতীয় টার্মিনাল একটি। এখন পর্যন্ত তৃতীয় টার্মিনালের অগ্রগ’তি হয়েছে ৪৪.১৫ শতাংশ।

 

আমাদের প্রত্যাশার চেয়ে ২ শতাংশ বেশি অগ্রগ’তি হয়েছে। দ্রুত কাজটা শেষ হবে। এতে যাত্রীদের সু’বিধা অনেক বাড়বে। ২০২৩ সালের অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রী তৃতীয় টার্মিনাল উদ্বোধ’ন করতে পারবেন। প্রধানমন্ত্রী চান আকাশ পরিবহনে বাংলাদেশের ভা’বমূ’র্তি যেন উ’ন্নত হয়। কারণ বিমানবন্দর হচ্ছে একটি দেশের প্রধান গেটওয়ে বা ড্রয়িং রুম।

 

দেশের এভিয়েশন সেক্টরে বড় ধরনের বি’প্লব হচ্ছে জানিয়ে বিমান প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নি’র্দেশে দেশের অন্য বিমানবন্দরগুলোর কাজ চলছে। বিমানবন্দরের লাগেজ ডে’লিভা’রিতেও সময় অনেক কমে আসছে। যাত্রী যাতে কোনো হ’য়রা’নির শি’কার না হন, সে বিষয়টি আমরা খে’য়াল রাখছি।

 

অতিরিক্ত জনব’ল নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এতে যাত্রীরা সুন্দর ব্যবহার পাবেন। যখন দেখবো সব ঠিকঠাক হচ্ছে, তখন বুঝবো আমাদের কর্মকা’ণ্ড স্বা’র্থক হচ্ছে। পৃথিবীর বিভিন্ন এয়ারপোর্টে যে সেবা দেওয়া হয়, সেই ধরনের আন্তর্জাতিক সেবা যাতে দেশের বিমানবন্দরগুলোতে থাকে, সেটা আমরা নিশ্চিত করবো।

 

সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, তৃতীয় টার্মিনালের কাজের মান নিয়ে কোনো ধর’নের আ’পস করা হয়নি, ভবিষ্যতেও হবে না। দরপত্রে উ’ল্লেখিত মানের পণ্যই এই প্রকল্পের কাজে সরবরাহ নেওয়া হবে, অন্য কোনোকিছু গ্রহণ করা হবে না। রাষ্ট্রের বা জনগণের এক পয়সা ক্ষ’তি হয় এরকম কোনো কিছু এখানে প্রশ্রয় দেওয়া হবে না।

 

এসময় বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান, বিমানবন্দরের নির্বাহী পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন কামরুল ইসলাম, তৃতীয় টার্মিনালের প্রকল্প পরিচালক মাকসুদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.