এই বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত কার্যকর ১৩টি এয়ারলাইন্সকে দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চলাচলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এয়ারলাইন্স গুলো হলো :

 

এয়ার অ্যারাবিয়া, এয়ার কায়রো, বদর এয়ারলাইন্স, ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্স, ইতিহাদ এয়ারওয়েজ, ফ্লাইদুবাই, হিমালয় এয়ারলাইন্স, জাজিরা এয়ারওয়েজ, নেপাল এয়ারলাইন্স, পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স, পেগাসাস এয়ারলাইন্স, সালাম এয়ার ও টারকো এভিয়েশন।

 

দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রস্থান এবং আগমনের জন্য টার্মিনালে গাড়ি পার্কিং সুবিধা রয়েছে। গাড়ী পার্কিং এর জন্য প্রথম ৫ ঘন্টা পর্যন্ত ১০ কাতারি রিয়াল দিতে হবে। এবং পুরো একদিন (২৪ ঘন্টা) যদি টার্মিনালে গাড়ি পার্কিং করে রাখা হয়, তবে পার্কিং বাবদ ১৪৫ রিয়াল খরচ করতে হবে।

 

দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের প্রস্থান টার্মিনালটি দোহা শহরের পুরাতন বিমানবন্দর এলাকার ডি-রিং রোড এবং আল মাতার রাস্তার সংযোগস্থলে অবস্থিত।

 

ফুটবল বিশ্বকাপে অতিরিক্ত যাত্রীর চাপ সামলাতে পুনরায় দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর চালু করেছে কাতার। ২০১৪ সালে কাছাকাছি অবস্থিত হামাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর চালু হওয়ার পর থেকে দোহা বিমানবন্দর আধা অবসরে রয়েছে।

 

সে সময় থেকে নতুন বিমানবন্দরটি রাষ্ট্রীয় এয়ারলাইনস কাতার এয়ারওয়েজের প্রধান কেন্দ্র হয়ে উঠেছে। তবে দেশটির কর্তৃপক্ষ দোহা বিমানবন্দর পুনরায় চালু করা নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

 

দোহা বিমানবন্দরটি মূলত কাতারের রাজপরিবার ও ভিআইপিদের পাশাপাশি এয়ার ফোর্সের ফ্লা’ইটের জন্য ব্যবহূত হচ্ছে। হামাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরটি দিয়ে কেবল জুনেই তিন লাখ যাত্রী পারাপার হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.