জীবিকার তাগিতে ৬ বছর আগে কাতার প্রবাসী হয়েছিলেন মিরসরাইয়ের জহির উদ্দিন (৪৭)। এক ছেলে এক মেয়ে ও স্ত্রী ও দুই ছেলেমেয়েকে নিয়ে মোটামুটি সুখেই কা’টছিলো তার জীবন।

 

কিন্তু হঠাৎ রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় মৃ’ত্যুবরণ করেন জহির উদ্দিন। পরিবারে নেমে আসে অ’ন্ধকারের কালো ছা’য়া। মঙ্গলবার (১৩সেপ্টেম্বর) রাতে ঘুম’ন্ত অব’স্থায় হৃ’দরোগে আ’ক্রান্ত হয়ে নিজ বাসায় মৃ’ত্যুবরণ করেন তিনি।

 

নিহ’ত জহির উদ্দিন চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার মায়ানী ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সৈদালী গ্রামের আরব আলী মিস্ত্রি বাড়ির মরহুম নিজাম উদ্দিনের বড় ছেলে।

 

তিনি মধ্যপ্রাচ্যের কাতারে দীর্ঘ ৬ বছর ধরে একটি মালিকানাধীন কোম্পানির আওতায় গাড়ি চালাতেন। বিষয়টি নিশ্চিত করে সৈদালী ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. ইয়াসিন মিয়া বলেন, জহির উদ্দিন আমার সমবয়সী।

 

তার মৃ’ত্যুর সংবাদ শোনার জন্য প্রস্তুত ছিলাম না। গতকাল রাতের কোন এক সময়ে সে হৃ’দরো’গে আক্রা’ন্ত হয়ে ঘুমন্ত অবস্থায় মা’রা গেছে। তার দুটি সন্তান রয়েছে। বড় মেয়ে অনার্সে পড়ছে এবং ছোট ছেলে স্কুলে পড়ছে।

 

জহির উদ্দিনের লা’শ দেশে আনতে সহযোগিতা চেয়েছে পরিবার। প্রবাসীর মৃ’ত্যুর খবর দেশে আসলে এলাকায় শো’কের ছায়া নেমে আসে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে তার ম’রদেহ দেশে আনা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.