কাতারের সব বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ও দোকানে গ্রাহকরা যাতে আধুনিক প’দ্ধতির ইলেকট্রনিক পেমে’ন্ট ব্যবহার করতে পারেন, সেজন্য সব দোকানে ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সিস্টেম রাখা বাধ্যতামূলক করেছে শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

 

পাশাপাশি বলা হয়েছে, ইলেকট্রনিক পেমেন্টের জন্য গ্রাহকদের থেকে কোনো ধরণের অতিরিক্ত চার্জ কাটা যাবে না। ‘কম ক্যাশ বেশি নিরাপত্তা’ শ্লোগান অনুসরণ করে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

 

ফলে এখন থেকে কাতারের সব দোকানে গ্রাহকদের জন্য তিন ধরনের ইলেকট্র’নিক পেমেন্ট সেবার যে কোনো একটি চালু রাখতে হবে। তিন ধরনের ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সেবা হলো: (১) ব্যাংক কার্ড পেমেন্ট, (২) ব্যাংক পেমেন্ট ওয়ালেট, (৩) কিউআর কোড দিয়ে পে করা।

 

টুইটারে এক পোস্টে মন্ত্রণালয় জানায়, নগদ অর্থ দিয়ে লেনদেনের জন্য দীর্ঘ প্র’ক্রিয়ার প্রয়োজন হয়। নগদ লেনদেনের তুলনায় ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সেবা অনেক সহজ ও ঝামে’লামু’ক্ত।

 

যেমন, নগদে লেনদেনের ক্ষেত্রে ব্যাংক থেকে টাকা তোলা ও ব্যাংকে নগদ নিয়ে যাওয়াসহ নানারকম ভো’গান্তি থাকে। এছাড়াও ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সেবা জা’ল টাকা ও নগদ চু’রির ঝুঁ’কি কমাতে সাহায্য করে।

 

ব্যাংক কার্ড, ক্রেডিট কার্ড ও ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে পেমে’ন্টের ক্ষেত্রে কোনোরকম অতিরি’ক্ত চার্জ আরোপ না করার নির্দেশনা দিয়েছে শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। ইতিমধ্যে কাতারে ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সিস্টেমের একটি সম্পূর্ণ অ’বকাঠামো তৈরির চেষ্টা শুরু করেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.